Sunday, July 14, 2024
spot_img
Homeপ্রযুক্তি খবরবৈশ্বিক মার্কেট শেয়ারে ইনফিনিক্সের উল্লেখযোগ্য প্রবৃদ্ধি অর্জন

বৈশ্বিক মার্কেট শেয়ারে ইনফিনিক্সের উল্লেখযোগ্য প্রবৃদ্ধি অর্জন

প্রযুক্তি ব্র্যান্ড ইনফিনিক্স ২০২৪ সালের প্রথম প্রান্তিকে বৈশ্বিক মার্কেট শেয়ারে উল্লেখযোগ্য প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে।

ইন্টারন্যাশনাল ডেটা কর্পোরেশনের (আইডিসি) বৈশ্বিক ত্রৈমাসিক মোবাইল ফোন ট্র্যাকারের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বের প্রধান স্মার্টফোন ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে বছরে সর্বোচ্চ বৈশ্বিক মার্কেট শেয়ারে প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে কোম্পানিটি।

২০২৪ সালের প্রথম প্রান্তিকে তাদের বার্ষিক মার্কেট শেয়ার ১.৭% থেকে ৩.৭% পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়া বিশ্বজুড়ে কোম্পানিটির স্মার্টফোন চালান ১৫০.৬% পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে। এর মাধ্যমে টানা চার প্রান্তিকে দ্রুত ও টেকসই প্রবৃদ্ধি বজায় রেখেছে এই ব্র্যান্ড।

ইনফিনিক্সের জেনারেল ম্যানেজার টনি ঝাও বলেন, “২০২৪ সালের প্রথম প্রান্তিকে এমন অসাধারণ পারফরম্যান্স দেখাতে পেরে আমরা খুবই আনন্দিত। প্রযুক্তিপ্রিয় গ্রাহকদের হাতে সাশ্রয়ী মূল্যে সেরা মানের ফোন পৌঁছে দিতে আমাদের টিম নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এই সাফল্যে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছে আমাদের প্রশংসিত ইনফিনিক্স নোট ৪০ সিরিজ এবং ইনফিনিক্স জিটি ২০ প্রো। এই ফোনগুলো ভোক্তাদের চার্জিং ও গেমিং পারফরম্যান্স সংক্রান্ত প্রয়োজনীয়তা মিটিয়েছে। পাশাপাশি বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজারে প্রথম সারির উদ্ভাবক হিসেবে আমাদের অবস্থানও দৃঢ় করেছে।”

আফ্রিকা ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মতো গুরুত্বপূর্ণ বাজারে ইনফিনিক্সের পারফরম্যান্স ছিল লক্ষণীয়। ২০টির বেশি দেশে স্মার্টফোন মার্কেট শেয়ারের ক্ষেত্রে সেরা পাঁচের মধ্যে স্থান করে নিয়েছে ব্র্যান্ডটি। বিশ্বের বৃহত্তর ভোক্তাগোষ্ঠীর কাছে আধুনিক প্রযুক্তি সহজলভ্য করে তুলতে ইনফিনিক্স দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। অসাধারণ এই অর্জনের মধ্য দিয়ে সেই প্রতিজ্ঞার কথাই ফুটে ওঠে।

তাছাড়া, ইনফিনিক্সকে ২০২৪ সালের এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলের ষষ্ঠ সেরা উদ্ভাবনী ব্র্যান্ড হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে ফাস্ট কোম্পানি। সম্মানজনক এই তালিকায় একমাত্র স্মার্টফোন ব্র্যান্ড হিসেবে স্থান পেয়েছে ইনফিনিক্স।

ইনফিনিক্সের জোরালো বৈশ্বিক মার্কেট শেয়ার অর্জনের পেছনে আছে তরুণদের পছন্দের সাথে মিল রেখে পণ্য বাজারে নিয়ে আসা, উদ্ভাবনী পণ্য ও সৃজনশীল মার্কেটিং। ইনফিনিক্স নোট ৪০ সিরিজ এবং জিটি ২০ প্রো বাজারে এনে গেমারদের মনোযোগ আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়েছে কোম্পানিটি।

এসব ফোনে যুক্ত করা হয়েছে নতুন অল-রাউন্ড ফাস্টচার্জ ২.০, যার লক্ষ্য ছিল চার্জিং নিয়ে গ্রাহকদের দাবি পূরণ করা। এই ফিচারগুলোর মধ্যে আছে ১০০ ওয়াট মাল্টি-স্পিড ফাস্টচার্জ, ওয়্যারলেস ম্যাগচার্জ এবং মাল্টি-ফাংশনিং চার্জিং মোড সাপোর্টকারী চিতা এক্স১ চিপ। ইনফিনিক্স জিটি ২০ প্রো এই দামের মধ্যে একমাত্র ফোন যাতে একটি গেমিং ডিসপ্লে চিপ যুক্ত আছে। ব্যবহারকারীদের গেমিং অভিজ্ঞতা উন্নত করাই এর লক্ষ্য।

২০২৪ সালের প্রথম প্রান্তিকে ইনফিনিক্সের এসব অর্জনের মাধ্যমে উদ্ভাবনী এবং সাশ্রয়ী মূল্যের পণ্য সরবরাহ, বহুমুখী মার্কেটিং পদ্ধতির ব্যবহার এবং প্রযুক্তিগত অগ্রগতির প্রতি কোম্পানিটির প্রতিশ্রুতি প্রতিফলিত হয়। এই ব্র্যান্ডের বৈচিত্র্যময় এবং তরুণকেন্দ্রিক মার্কেটিং কৌশল এর অসাধারণ বৈশ্বিক পারফরম্যান্স ও খ্যাতির পেছনে অবদান রেখেছে। ভবিষ্যতে ব্যবহারকারীদের উন্নত পণ্য ও সেবা প্রদান, নতুন মানদণ্ড স্থাপন ও আরও বেশি সাফল্য অর্জনের চেষ্টা করাই ইনফিনিক্সের লক্ষ্য।

spot_img
আরও পড়ুন
- Advertisment -spot_img

সর্বাাধিক পঠিত

spot_img