প্রিমো জিএইচ টেন-ট্রিপল ক্যামেরার ‘বাজেট সুপারহিরো’ স্মার্টফোন

Primo GH10 (1)

সাশ্রয়ী মূল্যের নতুন আরেকটি স্মার্টফোন বাজারে ছেড়েছে প্রযুক্তিপণ্যের দেশীয় নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। ফোনটির মডেল ‘প্রিমো জিএইচ টেন’। নজরকাড়া ডিজাইনের ওই ফোনে বড় পর্দার ভি-নচ ডিসপ্লে, ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা, শক্তিশালী র‌্যাম-রম, অ্যান্ড্রয়েড ১১, ফেস আনলকসহ আকর্ষণীয় সব ফিচার রয়েছে।

ওয়ালটন মোবাইলের চিফ বিজনেস অফিসার (সিবিও) এসএম রেজওয়ান আলম বলেন, এন্ট্রি লেভেলের ক্রেতাদের চাহিদা ও প্রয়োজনীয়তা বিবেচনায় ‘প্রিমো জিএইচ টেন’ মডেলটি বাজারে ছাড়া হয়েছে। এর ডিজাইন ও পারফর্মেন্স সবার মন কেড়ে নেবে। ম্যাট ব্ল্যাক, রয়েল ব্লু এবং এমারেল্ড গ্রিন- এই তিনটি আকর্ষণীয় রঙে বুধবার (৬ অক্টোবর) হ্যান্ডসেটটি বাজারে এসেছে। ফোনটির দাম ৭,৯৯৯ টাকা। তবে এই ফোনে ৪০০ টাকা ক্যাশব্যাক পাচ্ছেন গ্রাহক। ফলে এর দাম পড়ছে মাত্র ৭,৫৯৯ টাকা।

দেশের সব ওয়ালটন প্লাজা, মোবাইল ব্র্যান্ড ও রিটেইল আউটলেটের পাশাপাশি ঘরে বসে অনলাইনে ই-প্লাজা (https://eplaza.waltonbd.com) থেকেও ফোনটি কেনার সুযোগ রয়েছে। কনফিগারেশন ও দাম বিবেচনায় এটিকে ‘বাজেট সুপারহিরো’ স্মার্টফোন বলে অভিহিত করছেন সংশ্লিষ্টরা।

ওয়ালটন মোবাইলের মার্কেটিং ইনচার্জ হাবিবুর রহমান তুহিন জানান, নতুন এই ফোনটিতে ব্যবহৃত হয়েছে ইনসেল আইপিএস প্রযুক্তির ২০:৯ রেশিওর ভি-নচ ডিসপ্লে। ৬.৫২ ইঞ্চির এইচডি প্লাস পর্দার রেজ্যুলেশন ১৬০০ বাই ৭২০ পিক্সেল। ক্যাপাসিটিভ টাচ স্ক্রিন সুবিধাযুক্ত স্মার্টফোনটিতে রয়েছে ধূলা ও আঁচররোধী ২.৫ডি কার্ভড গ্লাস। ফলে বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহারে অনন্য অভিজ্ঞতা পাবেন গ্রাহক।

ফোনটি অ্যান্ড্রয়েড ১১ (গো এডিশন) অপারেটিং সিস্টেমে পরিচালিত। ফলে এই ফোনের কার্যক্ষমতা ও গতি বেশি। এতে ব্যবহৃত হয়েছে ১.৬ গিগাহার্টজ গতির এআরএম কর্টেক্স-এ৫৫ অক্টাকোর প্রসেসর। সঙ্গে রয়েছে পাওয়ার ভিআর জিই৮৩২২ গ্রাফিক্স এবং ২ গিগাবাইট র‌্যাম। ফলে বিভিন্ন অ্যাপস ব্যবহার, ইন্টারনেট ব্রাউজিং, থ্রিডি গেমিং এবং দ্রুত ভিডিও লোড ও ল্যাগ-ফ্রি ভিডিও স্ট্রিমিং সুবিধা পাওয়া যাবে। ফোনটির অভ্যন্তরীণ মেমোরি ৩২ গিগাবাইটের। যা মাইক্রো এসডি কার্ডের মাধ্যমে ১২৮ গিগাবাইট পর্যন্ত বাড়ানো যাবে।

‘প্রিমো জিএইচ টেন’ মডেলের ফোনটির পেছনে রয়েছে এলইডি ফ্ল্যাশযুক্ত এফ/২.০ অ্যাপারচার সমৃদ্ধ পিডিএএফ প্রযুক্তির ট্রিপল অটোফোকাস ক্যামেরা। ৫পি লেন্স সমৃদ্ধ ১/৪ ইঞ্চির সেন্সরযুক্ত ৮ মেগাপিক্সেলের প্রধান ক্যামেরার পাশাপাশি আছে ০.৩ মেগাপিক্সেলের ডেফথ সেন্সর এবং আরেকটি ০.৩ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো সেন্সর। ফলে ছবি হবে ঝকঝকে উজ্জ্বল। এতে প্রোফেশনাল বোকেহ ইফেক্ট পাওয়া যাবে। ব্যাকগ্রাউন্ড ব্লার করে ছবি তোলা সম্ভব হবে।

আকর্ষণীয় সেলফির জন্য এই ফোনের সামনে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ক্যামেরায় নরমাল মোড ছাড়াও রয়েছে প্রো, বিউটি, ইন্টারভ্যাল, কিউট মোড, বিএসআই, ফেস ডিটেকশন, ডিজিটাল জুম, সেলফ টাইমার, অটো-ফোকাস, টাচ-ফোকাস, মিরর রিফ্লেকশন, স্মাইল শাটার, ভলিউম ক্যাপচার, ফিংগার ক্যাপচার, অডিও নোট, প্যানারোমা, টাইম ল্যাপস, কিউআর কোড, নাইট, ডিভি নাইটসহ অসংখ্য আকর্ষণীয় ফিচার।

স্মার্টফোনটিতে পর্যাপ্ত পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য ব্যবহৃত হয়েছে ৪০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি। কানেক্টিভিটি হিসেবে আছে ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ, মাইক্রো ইউএসবি, কাস্ট স্ক্রিন, ল্যান হটস্পট, ওটিএ এবং ওটিজি। সেন্সর হিসেবে আছে এক্সিলারোমিটার (থ্রিডি), জিপিএস, এ-জিপিএস, লাইট (ব্রাইটনেস), প্রোক্সিমিটি ইত্যাদি। ফোনের সুরক্ষায় রয়েছে ফেস আনলক ও ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর।

এর অন্যান্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে ভিওএলটিটিই বা ভোল্টি সাপোর্টসহ ডুয়াল সিমে ফোরজি নেটওয়ার্ক সাপোর্ট, মাইক্রো এসডি কার্ডের জন্য আলাদা স্লট, রেকর্ডিং সুবিধাসহ এফএম রেডিও, ফুল এইচডি

ভিডিও প্লে-ব্যাক, স্ক্রিন রেকর্ড, স্মার্ট কন্ট্রোল, স্ক্রিন জেসচার নেভিগেশন, ডার্ক মোড, পকেট মোড, অটো কল রেকর্ডার ইত্যাদি।

বাংলাদেশে তৈরি এই স্মার্টফোনে ৩০ দিনের বিশেষ রিপ্লেসমেন্ট সুবিধাসহ এক বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা থাকছে।

*

*