দুর্দান্ত ফিচারের প্রিমো এসএইট, প্রথম ক্রেতা আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

Walton Primo S8 launching Picture 2

উন্মোচিত হলো দুর্দান্ত ফিচারের স্মার্টফোন ‘প্রিমো এসএইট’। বাংলাদেশে তৈরি ওয়ালটনের এই ফোনের ডিজাইন, ক্যামেরা, ব্যাটারিসহ অন্যান্য কনফিগারেশন ইতোমধ্যেই প্রযুক্তিপ্রেমীদের মন জয় করে নিয়েছে। সদ্য চালু হওয়া ওয়ালটনের ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম ওয়ালকার্ট থেকে প্রি-অর্ডার দিলে ২,০০০ টাকা মূল্যছাড়ে ফোনটি মাত্র ১৮,৯৯০ টাকায় পাচ্ছেন গ্রাহক।

ওয়ালটন করপোরেট অফিসে অনুষ্ঠিত ওয়ালকার্টের গ্রান্ড ওপেনিংয়ে বিশেষ চমক হিসেবে ‘প্রিমো এসএইট’ মডেলের নতুন ফোনটি উপস্থাপন করা হয়। অনুষ্ঠানে স্মার্টফোনটির টেকনিক্যাল রিভিউ দেন ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজের এমডি ও সিইও গোলাম মুর্শেদ। তার উপস্থাপনায় মুগ্ধ হয়ে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক ওয়ালকার্টের ওয়েবসাইট থেকে ফোনটির অর্ডার দেন। বিশেষ ব্যবস্থাপনায় তাৎক্ষণিকভাবে প্রতিমন্ত্রীকে ফোনটি ডেলিভারি দেয়া হয়।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন ই-ক্যাবের প্রেসিডেন্ট শমী কায়সার, বেসিসের প্রেসিডেন্ট সৈয়দ আলমাস কবীর, বিসিএসের প্রেসিডেন্ট শহীদ-উল মুনির, বাক্কোর প্রেসিডেন্ট ওয়াহেদ শরীফ, ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান এস এম নূরুল আলম রেজভী, ভাইস-চেয়ারম্যান এস এম শামছুল আলম, পরিচালক এস এম রেজাউল আলম এবং তাহমিনা আফরোজ তান্না, ওয়ালকার্টের চেয়ারম্যান এস এম মঞ্জুরুল আলম অভি এবং ম্যানেজিং ডিরেক্টর সাবিহা জারিন অরনা।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী ফোনটির কনফিগারেশন এবং সাশ্রয়ী মূল্যের প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ পণ্য উচ্চ গুণগতমানের এবং সাশ্রয়ী। ডিজিটাল ইকোনমির ইকোসিস্টেম গড়ে তোলায় সকল নাগরিকের জন্য ‘এক্সেস টু ডিভাইস’ নিশ্চিতে ওয়ালটন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

ফোনটির টেকনিক্যাল রিভিউতে গোলাম মুর্শেদ বলেন, সম্পূর্ণ থ্রিডি গ্লাস প্যানেলে তৈরি ‘প্রিমো এসএইট’ খুবই দৃষ্টিনন্দন। ফোনটি এসেছে মিরর ব্ল্যাক এবং ওশেন ব্লু রঙে। এর ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সরটি সাইড মাউন্টেড। ৮.৬ মিলিমিটার স্লিম ফোনটির ডিজাইন ও বিল্ট কোয়ালিটি গ্রাহকের মন কেড়ে নেবে। ডিভাইসটি ব্যবহারে গ্রাহক প্রিমিয়াম ফিল পাবেন।

তিনি জানান, নতুন এই ফোনটিতে রয়েছে ২১:৯ অ্যাসপেক্ট রেশিওর ৬.৭৮ ইঞ্চির ৯০ হার্জ সমৃদ্ধ ফুল এইচডি প্লাস এলটিপিএস ডিসপ্লে। পর্দার রেজ্যুলেশন ২৪৬০ বাই ১০৮০ পিক্সেল। অ্যান্ড্রয়েড ১১ অপারেটিং সিস্টেমে পরিচালিত ওয়ালটনের এই ফোনে ব্যবহৃত হয়েছে ২.০ গিগাহার্জ গতির শক্তিশালী হেলিও জি৮৮ অক্টাকোর প্রসেসর। গ্রাফিক্স হিসেবে আছে এআরএম মালি-জি৫২ এমসিটু। এরসঙ্গে ৬ গিগাবাইট এলপিডিডিআর৪এক্স র‌্যাম থাকায় মিলবে দুর্দান্ত গতি। অসাধারণ গেমিং অভিজ্ঞতা পাবেন গ্রাহক। ফোনটিতে ১২৮ গিগাবাইট ইন্টারন্যাল স্টোরেজের সাথে ২৫৬ গিগাবাইট মাইক্রো এসডি কার্ড সাপোর্ট সুবিধা রয়েছে।

স্মার্টফোনটির অন্যতম বিশেষ ফিচার এর ক্যামেরা। ফোনটির পেছনে রয়েছে এলইডি ফ্ল্যাশসহ ১.৭ অ্যাপারচার সমৃদ্ধ এআই কোয়াড (চার) ক্যামেরা সেটআপ। যার প্রধান সেন্সরটি ৪৮ মেগাপিক্সেলের। পাশাপাশি রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স, ২ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো লেন্স এবং ২ মেগাপিক্সেলের ডেফথ সেন্সর। ১/২ ইঞ্চির ৬পি লেন্স থাকায় ছবি হবে ঝকঝকে ও নিখুঁত। পেছনের ক্যামেরায় ফুলএইচডি রেজ্যুলেশনের ভিডিও ধারণ করা যাবে। আকর্ষণীয় সেলফির জন্য ফোনটির সামনে রয়েছে ২.০ অ্যাপারচারের পিডিএএফ প্রযুক্তির ৮ মেগাপিক্সেল মিডল পাঞ্চহোল ক্যামেরা। দুর্দান্ত পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য ফোনটিতে রয়েছে ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জিংসহ ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার লি-পলিমার ব্যাটারি। আছে টাইপ সি রিভার্স চার্জিং সুবিধা।

এর অন্যান্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে ফেস আনলক, ফুল এইচডি ভিডিও প্লেব্যাক ও ক্যামকর্ডার, স্ক্রিন রেকর্ডার, ইন্টেলিজেন্ট এসিস্ট্যান্ট, স্মার্ট কন্ট্রোল, স্প্লিট স্ক্রিন, ডার্ক মোড, সাসপেন্ড বাটন, প্রেয়ার টাইমস, ফোরজি সিম সাপোর্ট, ওটিএ, ওটিজি ইত্যাদি।

ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের নিজস্ব কারখানায় তৈরি এই স্মার্টফোনে ৩০ দিনের বিশেষ রিপ্লেসমেন্ট সুবিধা রয়েছে। এছাড়া, ১০১ দিনের প্রায়োরিটি সেবাসহ স্মার্টফোনে এক বছরের এবং ব্যাটারি ও চার্জারে ছয় মাসের বিক্রয়োত্তর সেবা পাচ্ছেন গ্রাহক।

*

*