এঞ্জেল ইনভেস্টমেন্ট পেল নিরাপদ খাদ্য পরিবেশনকারী প্রতিষ্ঠান গ্রিন গ্রোসারি

Green Grocery

এঞ্জেল ইনভেস্টমেন্ট পেল নিরাপদ খাদ্য পরিবেশনকারী প্রতিষ্ঠান গ্রিন গ্রোসারি। গ্রিন গ্রোসারির ফাউন্ডার এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক তালুকদার মোহাম্মদ সাব্বির এ প্রসংগে বলেন- “Quality That You Can Trust – এই প্রতিজ্ঞা নিয়েই নিরাপদ খাদ্য উৎপাদন, সংরক্ষন এবং এর সঠিক পরিবেশনের জন্য নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছে গ্রীন গ্রোসারি।’ গ্রীন গ্রোসারির এই প্রচেষ্টায় ভরসা রেখে সফটওয়্যার সেবাদানকারী প্রতিষ্টান এ আর কম এর প্রতিষ্ঠাতা এম আসিফ রহমানের নেতৃত্ত্বে একদল তরুন বিনিয়োগকারী বিনিয়োগ করেছেন এই প্রতিষ্ঠানে। এসব বিনিয়োগকারীর মধ্যে আছেন ডব্লিউপি ডেভেলপারের প্রধান নির্বাহী নাজমুল হাসান রূপক, ইফলির সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম, ইফলির সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা প্রাণ কৃষ্ণ পাল, আসিফ আনাম সিদ্দিকী, অথল্যাবের প্রধান নির্বাহী মো. শাহজাহান।

মানুষের দৈনন্দিন খাদ্যাভাসে নিরাপদ খাদ্যের যোগান এর উদ্দেশ্য নিয়ে ২০২০ সাল থেকে কাজ করছে গ্রীন গ্রোসারি। এর পন্য তালিকায় রয়েছে- তুলশীমালা পোলাওর চাল, গাওয়া ঘী, ঘানীতে ভাংগা সরিষার তেল,খাটি মধু, বিভিন্ন সিক্রেট রেসিপি মশালা, হোমমেড জেলি, পিনাটবাটার সহ চল্লিশটিরও বেশি খাদ্যপন্য যা ইতিমধ্যেই অনেকেরই পছন্দের পন্যে পরিণত হয়েছে। পন্যের বিশুদ্ধতার নিশ্চয়তায় একদম প্রান্তিক কৃষকদের সাথে নিবিড়ভাবে কাজ করছে একদল তরুনদের দ্বারা পরিচালিত এই প্রতিষ্ঠানটি। প্রান্তিক কৃষকদের কাছ থেকে গুনগত মান যাচাই বাছাই করে পন্য সংগ্রহ , পরিকল্পিতভাবে এর সংরক্ষন, স্বাস্থ্যকর এবং সুদৃশ্য মোড়কীকরন এবং অবেশেষে ভোক্তাদের হাতে দ্রুততার সাথে পৌছে দেয়ার কাজটিই অত্যন্ত দক্ষতার সাথে করে যাচ্ছে গ্রীন গ্রোসারি।

গ্রীন গ্রোসারিতে বিনিয়োগ প্রসঙ্গে এম আসিফ রহমান বলেন, ‘বাংলাদেশে D2C ( Direct to Consumer) ব্যবসায়িক ধারণাটিই নতুন।দেশে ইতিমধ্যে অনেকগুলো ব্রান্ড নিরাপদ পন্য নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে, তবুও সত্যি কথা হচ্ছে- ভেজালবিহীন নিরাপদ পণ্য পরিবেশন নিশ্চিতকরনের মত এমন আরো অনেক উদ্যোগ বাংলাদেশের মানুষের জন্য এই সময়টায় অনেক বেশি প্রয়োজন। দেশের মানুষ আগের থেকে এখন অনেক বেশি খাবারের নিরাপত্তা বিষয়টি নিয়ে সচেতন, সেখান থেকে বিবেচনা করলে গ্রীন গ্রোসারি একটি সম্ভাবনাময় উদ্যোগ। পরিকল্পমাফিকভাবে পন্যের গুনগত মান বজায় রেখে সঠিকভাবে বিপনন করতে পারলে এটি বহুদুর এগিয়ে যেতে পারবে । গ্রীন গ্রোসারিতে বিনিয়োগের পেছনে আমরা একদিকে যেমন এর ব্যবসায়িক দিকটি বিবেচনা করেছি ঠিক অন্যদিকে সামাজিক দ্বায়বধ্যতার ব্যাপারটিও আমাদের কাছে গুরুত্ত্বপুর্ন ছিল। আমরা মনে করি, যে পন্য আমি আমার পরিবারের জন্য বাছাই করব সেটি যেন সবাই তার পরিবারের জন্যও গ্রহন করে, গ্রীন গ্রোসারির মাধ্যমে নিরাপদ পন্যের প্রসারে যুক্ত হবার একটি সুযোগ হল ‘

গ্রীন গ্রোসারির অন্য দুই সহপ্রতিষ্ঠাতা সায়েম মুর্শেদ এবং সাবা চৌধুরী জানান গ্রীন গ্রোসারি তাদের পন্যের যোগান এবং বিপণন প্রক্রিয়া নিয়ে ইতিমধ্যে ব্যাপকভাবে কাজ শুরু করেছে এবং সেখানে এই বিনিয়োগটি বিশেষ সহায়ক হিসেবে কাজ করছে।

বিনিয়োগ পাওয়া প্রসংগে তালুকদার মোহাম্মদ সাব্বির বলেন- গ্রীন গ্রোসারির এই নতুন বিনিয়োগকারীরা সবাই- ই কিন্ত প্রতিষ্ঠিত এবং একই সাথে সফল উদ্যোক্তা। গ্রীন গ্রোসারিতে তারা একদিকে যেমন আর্থিক বিনিয়োগ নিয়ে এসছেন ঠিক একই ভাবে তাদের নিত্ত নতুন ভাবনা এবং বহুদিনের ব্যবসার অভিজ্ঞতাগুলোও কিন্ত গ্রীন গ্রোসারির জন্য সমানভাবে গুরুত্ত্বপুর্ন বিনিয়োগ। আমরা আশা করি, গ্রীন গ্রোসারির এই অর্জনকে কাজে লাগিয়ে সামনে এগিয়ে যেতে পারবে ।’

*

*