স্ক্রিন ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার প্যাটেন্ট পেয়েছে অপো

fingerprint

অপো ইন-ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্টের জন্য একটি প্যাটেন্ট অর্জন করেছে। সম্প্রতি চীনের দ্যা স্টেট ইন্টেলেকচুয়্যাল প্রপার্টি অফিস (এসআইপিও) অপো’কে এই প্যাটেন্ট প্রদান করে। প্যাটেন্টের জন্য দেওয়া ছবিগুলোতে দেখা যায়, এটি স্মার্টফোনের বটম বেজেলে বেশ বড় জায়গা দখল করেছে। ছবিতে প্যাটেন্টটিকে স্মার্টফোনের একটি হোম বাটন হিসেবে দেখা যায়; কিন্তু পরবর্তীতে যখন এটি স্মার্টফোনে ব্যবহার করা হবে তখন ঠিক এরকমটা হবে না। প্যাটেন্ট ইমেজে ব্যবহারকারীর পর্যায়ক্রমে ফিঙ্গারপ্রিন্ট দেওয়ার ছবি দেখাবে এবং গ্রহণযোগ্য ফিঙ্গারপ্রিন্টটি চিহ্নিত করবে। এটি স্ক্রিন অন থাকা অবস্থায়ও ব্যবহার করতে দেখা যায়, এতে বুঝা যায় যে এটি সিন্যাপটিক্স এর ডিজাইন করা প্রযুক্তি থেকে ভিন্ন এবং এর ওএলইডি প্যানেলের নিচে একটি আলো-বিচ্ছুরক সেন্সর থাকবে, যা ফিঙ্গারপ্রিন্টগুলো পড়বে।

ইন-ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর ২০১৮ সালের একটি উল্লেখযোগ্য উদ্ভাবন। একে পুঁজি করে অপো তার স্বর্ণালী অতীত ফিরে পেতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটি আকর্ষণীয় ডিজাইন এবং গতানুগতিকতার বাইরে গিয়ে নতুন পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য বেশ পরিচিত ছিল। সাধারণ ফিচার ব্যবহার করা হতো বলে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে অপো’র স্মার্টফোনগুলো সম্পর্কে সহজেই পূর্বানুমান করা যেত; যেখানে কী না অপো’র সিস্টার ব্র্যান্ড ভিভো নতুন নতুন মোড়ক ব্যবহার করে বেশ পরিচিতি লাভ করেছে। এ বছরের শুরুর দিকে ভিভো এক্স২০ প্লাস ইউডি এবং ভিভো অ্যাপেক্স, সিইএস ও মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে (এমডব্লিউসি) তাই প্রমাণ করেছে। অপো নতুন পাওয়া এই প্যাটেন্টের সাহায্যে পরবর্তী স্মার্টফোনগুলোতে নতুন কিছু করার জোর সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এবছরের মধ্যেই এরকম কোন আশা করা যাচ্ছে না। খুব সম্ভবত ২০১৯ সালেই অপো’র হ্যান্ডসেটে এই প্যাটেন্টের ব্যবহার হতে পারে।

নতুন এই প্রযুক্তির স্বত্বাধিকার পাওয়া সম্পর্কে অপো বাংলাদেশ-এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর ড্যামন ইয়াং বলেন, “তারুণ্য-কেন্দ্রিক ব্র্যান্ড হিসেবে অপো গ্রাহকদের জন্য সবসময় সর্বাধুনিক প্রযুক্তি নিয়ে আসায় গুরুত্ব দিয়ে থাকে। সম্প্রতি আমরা থ্রিডি ভিডিও কলিং-এর উপর পরীক্ষা চালিয়ে সফল হয়েছি। আমরা বিশ্বাস করি স্ক্রিন ফিঙ্গারপ্রিন্টের এই উদ্ভাবন গ্রাহকদের জন্য অনন্য কিছু নিয়ে আসবে।”

*

*