সুপারব্র্যান্ডস বাংলাদেশ অ্যাওয়ার্ড জিতলো গ্রামীণফোন

Grameenphone

আবারও সুপারব্র্যান্ডস বাংলাদেশ অ্যাওয়ার্ড জিতলো ডিজিটাল বাংলাদেশের কানেক্টিভিটি পার্টনার গ্রামীণফোন। দেশের মানুষ, এর গ্রাহক ও সকল অংশীদারদের আস্থায়ই সম্মানজনক এ স্বীকৃতি পেয়েছে গ্রামীণফোন। এজন্য প্রতিষ্ঠানটি গ্রাহক ও সকল অংশীদারদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে।

বৈশ্বিকভাবে খ্যাত বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান সুপারব্র্যান্ডস বিভিন্ন দেশে ১৯৯৪ সাল থেকে ব্র্যান্ডগুলোর নানা কার্যক্রম পর্যালোচনা ও মূল্যায়ন করে আসছে। ‘সুপারব্র্যান্ডস বাংলাদেশ’স চয়েস ২০২০-২১’ এর জন্য সেরা ব্র্যান্ডগুলো নির্বাচনে তিনটি মানদণ্ড অনুসরণ করা হয়েছে। মানদণ্ডগুলো হলো: মান, আস্থা ও বৈশিষ্ট্য। দ্বিতীয় পর্যায়ে সংক্ষিপ্ত তালিকায় বাছাইকৃত ব্র্যান্ডগুলোর সাথে ক্যাটাগরির প্রাসঙ্গিকতা, কতোদিন ধরে ব্র্যান্ডটি সেবা প্রদান করছে, সুনাম, গ্রাহক আস্থা এবং সামগ্রিকভাবে বাজারে গ্রহণযোগ্যতা এ বিষয়গুলোর ভিত্তিতে চূড়ান্ত বিজয়ী নির্বাচিত করা হয়। দেশের স্বনামধন্য অন্য ৩৯ প্রতিষ্ঠানের সাথে গ্রামীণফোনও এ অ্যাওয়ার্ড অর্জন করে।

গ্রাহকদের জন্য সহজ সল্যুশন নিয়ে আসার পাশাপাশি কোভিড-১৯ এর বৈশ্বিক মহামারি শুরু হওয়ার সময় থেকেই গ্রামীণফোন দায়িত্বশীল নানা উদ্যোগ করেছে এবং দেশের অর্থনীতি পুনরিদ্ধারে সহায়তা করে আসছে। এক্ষেত্রে, ‘ডাকছে আমার দেশ’ এবং ‘বাংলাদেশ চ্যালেঞ্জ’র মতো সময়োপযোগী নানা উদ্যোগ নিয়ে আসা ছাড়াও এককোটি গ্রাহকদের বিনামূল্যে কথা বলতে টকটাইম প্রদান, ডিজিএইচএস নির্বাচিত হাসপাতালে ডাক্তারদের পিপিই দিয়ে সহায়তা করা এবং ডিজিহেলথ এর ডাক্তারদের বিশেষ ইন্টারনেট প্যাকেজ দেয়া উল্লেখযোগ্য। এছাড়াও, বিগত বছরে গ্রামীণফোন নানা সম্ভাবনা উন্মোচনে কাজ করেছে। যা প্রতিষ্ঠানটির সুপারব্র্যান্ডস স্বীকৃতি পেতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে।

এ নিয়ে গ্রামীণফোনের চিফ মার্কেটিং অফিসার সাজ্জাদ হাসিব বলেন, ‘সুপারব্র্যান্ড হওয়ার ক্ষেত্রে আমাদের ওপর আস্থা রাখার জন্য আমি আমাদের সকল গ্রাহক, পার্টনার ও স্টেকহোল্ডারদের ধন্যবাদ জানাই। এ অ্যাওয়ার্ড বাংলাদেশে কানেক্টিভিটি পার্টনার হিসেবে আমাদের ২৩ বছরের বেশি সময় ধরে নানা উদ্যোগ নিয়ে কাজ করার স্বীকৃতিসরূপ। গ্রাহকদের উন্নত সেবাদানে আমরা তাদের প্রয়োজন অনুযায়ী উদ্ভাবনী সেবা নিয়ে আসি। এ অ্যাওয়ার্ড ঘোষণার মাধ্যমে আরও উন্নত সেবাদানে আমরা অনেক বেশি অনুপ্রাণিত ও অঙ্গীকারবদ্ধ। আমরা আমাদের সকল মূল্যবান গ্রাহকদের উদ্দেশ্যে এ অ্যাওয়ার্ড উৎসর্গ করছি।’

স্বচ্ছতা এবং কঠোর মূল্যায়ন প্রক্রিয়ার জন্য পরিচিত সুপারব্র্যান্ডস। সুপারব্র্যান্ডসের ব্র্যান্ড নির্বাচন প্রক্রিয়ায় ব্র্যান্ডিং, বিপণন ও সেবা মূল্যায়ন খাত থেকে স্বতন্ত্র ও নিরপেক্ষ মডারেটররা কাজ করেন। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ধারাবাহিকভাবে এ অ্যাওয়ার্ড অর্জন করে আসছে গ্রামীণফোন।

*

*