সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের কোন অ্যাকাউন্টটি নিরাপদ না: ক্রাফ

CRAF-arranged-seminer-on-Cy

যেসব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম সমুহের অ্যাকাউন্টে জন্ম তারিখ, ছবি, বন্ধু তালিকা এবং জাতীয় পরিচয় পত্রের কোন তথ্য যদি সাধারন জনগনের জন্য উন্মুক্ত করা থাকে সেই অ্যাকাউন্টটি কোন ভাবেই নিরাপদ না বলে জানিয়েছে অপরাধ গবেষনা বিষয়ক সংগঠন ক্রাইম রিসার্চ এন্ড এনালাইসিস ফাউন্ডেশন (ক্রাফ)। শনিবার রাজধানীর ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির (ইউআইইউ) দ্বিতীয় ক্যাম্পাসে ‘সাইবার সিকিউরিটি : স্বাধীনতা, গোপনীয়তা, কর্তব্য’ শীর্ষক  সাইবার নিরাপত্তা সচেতনতামুলক সেমিনারে ক্রাফের বক্তারা এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে ক্রাফের সহ-সভাপতি তানভীর জোহা বলেন, আমরা যেসব সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলো ব্যবহার করি, সেখানে প্রায় সময়ই নিজেদের জন্ম তারিখ, ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি বা সম্ভাব্য গন্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে স্ট্যাটাস আপডেট করে থাকি। কিন্তু এই তথ্যগুলো থেকেই যে আমাদের এই অ্যাকাউন্টের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হতে পারে তা আমরা অনেকেই জানি না। আর এই কারণেই নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা মনে করেন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের অ্যাকাউন্টগুলো কোনভাবেই নিরাপদ না। বর্তমান সময়ের হ্যাকাররা প্রযুক্তি নিয়ে খুবই আপডেট, তাই তারা চাইলেই সোশ্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং টুলসের মাধ্যমে যে কোন অ্যাকাউন্টের এক্সেস নিতে পারে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এসময় অনলাইন ভিত্তিক সামাজিক মাধ্যমে নিজের ব্যাক্তিগত তথ্যাদি সমুহ যাতে সবার কাছে উন্মোচিত না হয় সে ব্যাপারে সচেতনতা, সেই সাথে মানবসৃষ্ট ভুলের কারনে কিভাবে নেটওয়ার্ক এর নিরাপত্তা বিঘ্নিত হতে পারে সেই ব্যাপারে সর্তক থাকা পরামর্শ দেন তানভীর জোহা। অনুষ্ঠানে বাচতে হলে জানতে হবে স্লোগান নিয়ে আইন বিষয়ক ব্যাপারগুলো নিয়ে সচেতনতা মূলক আলোচনা করেন ইস্ট-ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির প্রভাষক, ‘ল এন্ড ডিজিটাল টেকনোলজি’ বিশেষজ্ঞ আইনজীবী সাইমুম রেজা পিয়াস। এসময় তিনি, ফেসবুক স্টাটাস থেকে অপরাধ, সাইবার মামলার শাস্তি, কি কি করলে সাইবার মামলা পর্নগ্রাফি আর দন্ডবিধি তে পড়বে, সাইবার স্পেসে কথা বলার অধিকার, বাংলাদেশে এটার বর্তমান অবস্থা ও সাংবিধানিক অধিকার নিয়ে কথা বলেন। ইউআইইউ কম্পিউটার ক্লাব এবং ক্রাফের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে ক্রাফের পক্ষ থেকে আরো উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির সভাপতি জেনিফার আলম, ক্রাফের ইউআইইউ প্রতিনিধি সায়মা আফরিনসহ আরো অনেকে। অনুষ্ঠনটির ডিজিটাল পার্টনার হিসেবে ছিলো ডিজিটাল টাইম এবং সার্বিক সহযোগিতায় ছিলো ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনাভার্সিটি।

*

*