বিসিএসের সঙ্গে বিআরবি ও শমরিতা হাসপাতালের সমঝোতা চুক্তি

BCS

বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ আইটি সংগঠন বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস)-এর সঙ্গে বেসকারি হাসপাতাল বিআরবি এবং শমরিতা হাসপাতালের মধ্যে একটি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। এই চুক্তির ফলে এখন থেকে বিসিএসের সকল মেম্বার, কর্মকর্তা ও তাদের পরিবারবর্গ বিশেষ ছাড়ে এই দুইটি হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা পাবেন।

গত সোমবার (১৭ ডিসম্বর) রাজধানীর পান্থপথে সন্ধ্যায় বিআরবি হাসপাতালের সেমিনার হলে উভয় পক্ষের উপস্থিতে প্রথম চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। বিসিএস এর পক্ষে সংগঠনটির সভাপতি ইঞ্জি. সুব্রত সরকার ও বিআরবি হসপিটালস লিমিটেডের পক্ষে প্রধান কার্যনির্বাহী কর্মকর্তা ড. আবু আলতাফ হাবিব চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন।

চুক্তি সাক্ষর অনুষ্ঠানে বিসিএস এর পক্ষে সংগঠনটির মহাসচিব মোশারফ হোসেন সুমন, কোষাধ্যক্ষ মো. জাবেদুর রহমান শাহীন, সহকারী মহাব্যবস্থাপক মো. হাসানুজ্জামান, আন্তর্জাতিক বিষয়ক ব্যবস্থাপক পবিত্র মিস্ত্রি এবং প্রোগ্রাম অফিসার মো. হাবিবুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। বিআরবি হসপিটাল লিমিটেডের পক্ষে সহকারী মহাব্যবস্থাপক (কর্পোরেট মার্কেট অ্যান্ড ট্রেনিং) কাজী আহসান হাবিব, প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা (সিএফও) মো. মাহবুব আলম এবং উপ-সহকারী মহাব্যবস্থাপক(এইচআর অ্যান্ড এডমিন) মো. গোলাম মাওলা উপস্থিত ছিলেন।

বিসিএস সভাপতি ইঞ্জি. সুব্রত সরকার বলেন, সারা বাংলাদেশে বিসিএস এর ৮টি শাখা এবং আড়াই হাজারের বেশি সদস্য রয়েছে। আরো দুইটি শাখা শিগগিরই চালু হবে। প্রতিদিন আমাদের সদস্য সংখ্যা বেড়ে চলছে। সর্ববৃহৎ এই সংগঠনের সদস্যদের জন্য আমরা এই চুক্তিগুলো সম্পন্ন করছি। এতে বিসিএস সদস্যদের পাশাপাশি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও লাভবান হবে। বিআরবি হাসপাতালকে পাশে থাকার জন্য সংগঠনটির পক্ষে আমরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি।

বিআরবি হসপিটালস লিমিটেডের প্রধান কার্যনির্বাহী কর্মকর্তা ড. আবু আলতাফ হাবিব বলেন, দেশের সবচেয়ে বড় কম্পিউটার সংগঠন বিসিএস সাথে আমরা যুক্ত হতে পেরে আনন্দিত। বিসিএস এর সঙ্গে সম্পর্কিত সকল সদস্য এবং তাদের প্রতিষ্ঠানে কর্মরত সদস্যরা এখন থেকে বিআরবি হাসপাতালে বিশেষ ছাড় উপভোগ করতে পারবেন। এ চুক্তি অনুসারে সকল হাসপাতাল বিলের উপর ১৫ শতাংশ ছাড় থাকবে। এছাড়াও ল্যাবরেটরি এবং রেডিওলজিক্যাল ইনভেস্টিগেশনে ২০ শতাংশ ছাড় দেয়া হবে। এক্সিকিউটিভ হেলথ ও কার্ডিয়াক চেকআপে ২৫ শতাংশ ছাড় থাকবে।

একই দিনে সন্ধ্যা ৭ টায় পান্থপথস্থ সমরিতা হাসপাতালে বিসিএস এর সঙ্গে অন্য আরেকটি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এই চুক্তি অনুসারে সকল ধরণের হাসপাতাল বিলের উপর বিসিএস এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সকল সদস্য এবং তাদের প্রতিষ্ঠানে কর্মরতদের জন্য ১৫ শতাংশ ছাড় মিলবে। এছাড়া ল্যাবরেটরি এবং রেডিওলজিক্যাল ইনভেস্টিগেশনে ২০ শতাংশ ছাড় দেয়া হবে। এক্সিকিউটিভ হেলথ ও কার্ডিয়াক চেকআপে ২৫ শতাংশ ছাড় থাকবে।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে বিসিএস এর পক্ষে সংগঠনটির মহাসচিব মোশারফ হোসেন সুমন এবং শমরিতা হাসপাতালের পক্ষে শমরিতা হাসপাতাল লিমিটেডের মহাব্যবস্থাপক মো. নুরুল ইসলাম তুহীন চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন।

বিসিএস মহাসচিব মোশারফ হোসেন সুমন বলেন, বিসিএস এর সকল সদস্য ও কর্মকর্তাদের জন্য বিসিএস থেকে প্রিভিলাইজ কার্ড প্রদান করা হবে। এই কার্ড প্রদর্শনপূর্বক বিসিএস সদস্যরা হাসপাতালগুলো থেকে বিলের উপর বিশেষ ছাড় উপভোগ করতে পারবেন। দুইটি হাসপাতাল দিয়ে শুরু হলেও ভবিষ্যতে আমরা আরো বেশ কয়েকটি হাসপাতাল, হোটেল, রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান, লাইফস্টাইল, রেস্টুরেন্টসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সমঝোতা চুক্তি সম্পন্ন করবো। এতে আমাদের সংগঠনের সদস্যরা সর্বোচ্চ সুযোগ সুবিধা পাবেন। বিসিএস সদস্যরা শুধু তথ্যপ্রযুক্তিতে নয়, বিসিএস সদস্য হিসেবে সবখানেই পাবেন আলাদা যত্ন। এ লক্ষ্যে আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করে যাচ্ছি।

শমরিতা হাসপাতাল লিমিটেডের মহাব্যবস্থাপক মো. নুরুল ইসলাম তুহীন বলেন, বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ তথ্যপ্রযুক্তি সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে আমরা গর্বিত। আমরা আশা করবো, বিসিএস সদস্যরা এখানে সর্বোচ্চ সেবা পাবেন। হাসপাতাল বিলের উপর ছাড়ের সঙ্গে আমাদের আন্তরিক সেবা বিসিএস সদস্যদের মুগ্ধ করবে বলেই আমার বিশ্বাস। তথ্যপ্রযুক্তিতে বিসিএস এর প্রসার হোক। এগিয়ে চলুক শমরিতা হাসপাতাল।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বিসিএস এর পক্ষে সংগঠনটির কোষাধ্যক্ষ মো. জাবেদুর রহমান শাহীন, সহকারী মহাব্যবস্থাপক মো. হাসানুজ্জামান এবং আন্তর্জাতিক বিষয়ক ব্যবস্থাপক পবিত্র মিস্ত্রি উপস্থিত ছিলেন। সমরিতা হাসপাতালের পক্ষে প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা (সিএফও) মনীষ বাড়ৈ এবং আইটি এবং এইচ আর প্রধান মো. জাফল উল্লাহ উপস্থিত ছিলেন।

*

*