বিশ্বের প্রথম আন্ডার-ডিসপ্লে ক্যামেরা ফোন

under display camerea phone

অবশেষে পঞ্চম প্রজন্মের (৫ জি) মোবাইল নেটওয়ার্ক উপযোগী ডিভাইস ‘অ্যাক্সন ২০’ উন্মোচনের মধ্য দিয়ে “বিশ্বের প্রথম আন্ডার-ডিসপ্লে ক্যামেরা ফোন” বাজারে আনল চীনা টেক জায়ানট জেডটিই। সেপ্টেম্বরের শুরুতেই চায়নার বাজারে ফোনটি অবমুক্ত করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

স্পেশাল মেটেরিয়াল, ডুয়েল কন্ট্রোল চিপ, ইউনিক ড্রাইভার সার্কিট, স্পেশাল পিক্সেল ম্যাট্রিক্স এবং ইন-হাউজ সেলফি অ্যালগরিদম সহ পাঁচটি কোর টেকনোলজি এই অত্যাধুনিক ডিভাইসটিতে ব্যবহৃত হয়েছে বলে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে জেডটিই বাংলাদেশ।

হ্যান্ডসেটটির মুল ওয়াইড-এঙ্গেল লেন্সগুলো ছবির স্থিতিশিলতাকে সাপোর্ট করে ও হাই কোয়ালিটি ভিডিও ধারনে সহায়তা করে। একইসাথে স্টাইলাইজড ভিডিও তৈরি করতে ডিভাইসটির ক্যামেরা সফটওয়্যারে ছয়টি ইনটেলিজেন্ট টেম্পলেট ফিচার রয়েছে যা বিশেষ ট্রানজিসন ইফেক্ট এর মাধ্যমে বুদ্ধিমত্তার সাথে বিভিন্ন ধরনের মিউজিকের সাথে মিলে যায়।

জেডটিই বাংলাদেশের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা পাং ওয়েই বলেন, ডিভাইসটির ডিসপ্লে এবং ফ্রন্ট ক্যামেরার পারফরমেন্সকে ভারসাম্যপূর্ণ রাখতে তাদের প্রতিষ্ঠান এক্ষেত্রে ‘অধিক স্বচ্ছ’ যন্ত্রাংশসহ নতুন অরগানিক ও ইনঅরগানিক ফিল্ম সংযুক্ত করেছে।

জেডটিই বাংলাদেশের পাবলিক রিলেশন ম্যানেজার অলিউল্লাহ রাফাত হ্যান্ডসেটটির ক্যামেরার কার্যকারিতা বর্ণনা করে বলেন, হ্যান্ডসেটটির ফ্রন্ট ক্যামেরা বিভিন্ন লাইটিং কন্ডিশনে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ‘ডায়নামিক রেঞ্জ এডজাস্টমেন্ট’ উপযোগি করা হয়েছে।

মিড-রেঞ্জ গ্রাহকদেরকে লক্ষ্য করে অ্যাক্সন ২০ হ্যান্ডসেটটি দ্রুতই বাংলাদেশের বাজারে আসবে হবে বলে আশা করা হচ্ছে। কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৭৬৫জি মোবাইল প্ল্যাটফর্ম দ্বারা চালিত, অ্যাক্সন ২০ এর মূল ক্যমেরাটি ৬৪ মেগাপিক্সেল সুপার হাই ডেফিনিশন সমৃদ্ধ যা ৩৮৪০x২১৬০ পিক্সেল অনুপাতে হাই-ডেফিনেশন ভিডিও ধারন করে। একাধিক লাইটিং পরিস্থিতিতেও রিয়েল-টাইম ভিডিও ধারনের সক্ষমতা রয়েছে ডিভাইসটির।

এছাড়াও, ডিভাইসটির তাপমাত্রা সঠিকভাবে সনাক্ত করতে একটি ‘ট্রিপল ইনটেলিজেন্ট’ তাপ অপসারণ ব্যবস্থাসহ নয়টি টেম্পারেচার সেন্সর রয়েছে। মাত্র ৭.৯৮ এমএম থিকনেসের সাথে ‘সত্যিকারের পূর্ণাঙ্গ ডিসপ্লে’ স্পেসিফিকেশন সম্বলিত জেডটিই অ্যাক্সন ২০, যা ৯.৯২ ইঞ্চি ওএলইডি বা অরগানিক লাইট-ইমিটিং ডায়োড ডিসপ্লে দ্বারা সুসজ্জিত । এটি ডিজিটাল সিনেমা ইনিসিয়েটিভস (ডিসিআই) স্ট্যান্ডার্ডের ১০-বিট কালার মেইনটেইনিং প্রোটোকল -৩ সাপোর্ট করে।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা-সম্পন্ন ভয়েস সাবটাইটেলিং শ্যুটিং মোড – স্প্লাইকিং, স্পিড চেঞ্জ, রিজিওনাল ক্রপিং, ফিল্টারিং এবং ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিকসহ অত্যাধুনিক ভিডিও এডিটিং ফাংশন রয়েছে ডিভাইসটিতে।

জেডটিই’র সুপার অ্যান্টেনা ২.০ হ’ল একটি ৩৬০ ডিগ্রি ইন্টিগ্রেটেড ডিজাইন এর পিডএস কাটিং এইজ অ্যান্টেনা এবং ক্লোজার-লুপ টিউনিং প্রযুক্তি যা নেটওয়ার্ক সংযোগ স্থায়িত্ব এবং ডাউনলোডের গতিকে তরান্বিত করতে পারে।

এছাড়াও, সর্বশেষ এমআইফ্যাভার ১০.৫ ইউআই সিস্টেম মুভি লেভেল স্ক্রিন অপ্টিমাইজেশন এবং স্মার্ট স্ক্রিন প্রজেকশনকে সাপোর্ট করে। একই সাথে ৪২২০ এমএএইচ ব্যাটারি ৩০ ওয়াটের ‘দ্রুত চার্জ’ এবং একটি ৫ জি পাওয়ার-সেভিং মোড ৩৫ শতাংশ ব্যাটারির আয়ু বৃদ্ধি করে।

*

*