বাংলাদেশে তৈরি হবে অত্যাধুনিক হিকভিশন নিরাপত্তা নজরদারী ও হাই-টেক যন্ত্রপাতি

hightech city

বাংলাদেশে বিশ্বের এক নম্বর নিরাপত্তা নজরদারী সলিউশন ব্র্যান্ড ‘হিকভিশন’-এর অত্যাধুনিক নিরাপত্তা নজরদারী যন্ত্রপাতিসহ অন্যান্য ব্র্যান্ডের ডিজিটাল ডিভাইস, নেটওয়ার্কিং, টেলিকম, এআই ও রোবটিক্স যন্ত্রপাতি তৈরি হবে। এসব কাজে কারখানা স্থাপনের জন্য গাজীপুরের কালিয়াকৈরস্থ বঙ্গবন্ধু হাই-টেক সিটি-তে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ এক্সেল ইন্টেলিজেন্ট সলিউসন্স লি.-কে দুই একর জমি বরাদ্দ করেছে। গতকাল রাজধানীর কাওরানবাজারস্থ জনতা টাওয়ার সফ্টওয়্যার টেকনোলজি পার্কের কনফারেন্স রুমে বরাদ্দকৃত জমি সংক্রান্ত এক দ্বিপক্ষীয় চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম এনডিসি এবং এক্সেল ইন্টেলিজেন্ট সলিউসন্স লি.-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক গৌতম সাহা স্ব-স্ব পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। চুক্তিস্বাক্ষর অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তাবৃন্দ, বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসের প্রথম জীনরহস্য উন্মোচনকারী অণুজীব বিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. সমীর কুমার সাহা, বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি মো. শাহিদ-উল-মুনীর, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যান্ড অটোমেশন (বাদসা)-এর সহ-সভাপতি সাগর কুমার টিটো ও মাহসচিব জালাল আহমেদ, এক্সেল ম্যাজেনমেন্ট কমিটি’র সদস্যবৃন্দ, বাংলাদেশে হিকভিশন ডিজিটাল টেকনোলজি কো. লি.-এর বিজনেস ডেভেলপ ম্যানেজার মো. মোদদাসিরুল হক (অনি), বিভিন্ন আইসিটি কোম্পানীর প্রতিনিধি এবং বিভিন্ন মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।

চুক্তিস্বাক্ষর অনু্ষ্ঠানে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম এনডিসি তার বক্তব্যে বলেন- বাংলাদেশে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ও সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য নিরাপত্তা নজরদারী যন্ত্রপাতিসহ অন্যান্য ডিজিটাল ও হাই-টেক যন্ত্রপাতি উৎপাদন করার উদ্যোগের বিষয়টি খুবই আশাব্যঞ্জক। এ জন্য এক্সেল ইন্টেলিজেন্ট সলিউসন্স লি.-কে জমি বরাদ্দ করতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। কারখানা স্থাপনসহ দ্রুত উৎপাদন শুরু করার কাজে এক্সেল ইন্টেলিজেন্ট সলিউসন্স লি.-কে কর্তৃপক্ষ সব ধরনের সহায়তা প্রদান করবে বলে তিনি আশ্বাস প্রদান করেন। তিনি বলেন আমরা চাই এভাবে আরো দেশী ও বিদেশি প্রতিষ্ঠান দেশব্যাপী হাই-টেক পার্কগুলোতে বিনিয়োগ করে উৎপাদন শুরু করবে। তাতে করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশমত ক্রমান্বয়ে আইসিটি পণ্য উৎপাদনের মাধ্যমে ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে নিজস্ব চাহিদা মিটিয়ে অচিরেই বাংলাদেশ রপ্তানীকারক দেশে পরিণত হবে।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি মো. শাহিদ-উল-মুনীর বলেন- আইসিটি খাতের উন্নয়ন ও প্রসারে বেসরকারি উদ্যোক্তাদেরকে সরকার প্রতিনিয়ত যেভাবে সাহায্য-সহযোগিতা করছে তাতে আইসিটি কোম্পানীগুলো উৎসাহিত হয়ে দেশের হাই-টেক পার্কগুলোতে কারখানা স্থাপনপূ্র্বক আইসিটি পণ্য উৎপাদন শুরু করে দিয়েছে। আমরা আশাবাদী দেশ অনতিবিলম্বে আইসিটি পণ্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ হবে।

বঙ্গবন্ধু হাই-টেক সিটি-তে জমি বরাদ্দ করার জন্য বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপকক্ষের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে এক্সেল ইন্টেলিজেন্ট সলিউসন্স লি.-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক গৌতম সাহা বলেন- আগামী তিন মাসের মধ্যে বঙ্গবন্ধু হাই-টেক সিটিতে হিকভিশন সিকিউরিটি ক্যামেরা ও আনুষঙ্গিক স্টোরেজসহ অন্যান্য যন্ত্রাংশ উৎপাদন শুরু এবং পরবর্তীতে ক্রমান্বয়ে সেখানে অন্যান্য ব্র্যান্ডের ডিজিটাল ডিভাইস, নেটওয়ার্কিং, টেলিকম, এআই ও রোবটিক্স যন্ত্রপাতি উৎপাদন করা হবে।

বাংলাদেশে হিকভিশন ডিজিটাল টেকনোলজি কো. লি.-এর বিজনেস ডেভেলপ ম্যানেজার মো. মোদ্দাচ্ছিরুল হক (অনি) বলেন বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ এবং এক্সেল ইন্টেলিজেন্ট সলিউসন্স লি.-কে আমাদের কোম্পানী অত্যাধুনিক নিরাপত্তা নজরদারী যন্ত্রপাতি উৎপাদনে সার্বিক সাহায্য-সহযোগিতা প্রদান করবে।

*

*