দেশীয় বাজারে হুয়াওয়ের ল্যাপটপ

Laptop

বাংলাদেশের বাজারে পাওয়া যাচ্ছে হুয়াওয়ের ল্যাপটপ। বৈশ্বিক বাজারে দারুণ সাফল্যের পর এবারই বাংলাদেশের বাজারে প্রথমবারের মতো প্রিমিয়াম দু’টি ল্যাপটপ নিয়ে আসল বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি।

বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) থেকে রায়ান্স কম্পিউটারস, স্টারটেক ছাড়াও হুয়াওয়ের নির্দিষ্ট কিছু শো’রুম থেকে ল্যাপটপ দু’টি কিনতে পাওয়া যাচ্ছে। এর আগে শনিবার (০৮ আগস্ট) এক অনলাইন ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে হুয়াওয়ে মেটবুক ১৩ ও মেটবুক ডি ১৫ মডেলের দুটি ল্যাপটপ আনার ঘোষণা দেওয়া হয়। তারপর থেকে প্রি-বুক চলে ১২ আগস্ট পর্যন্ত।

বাংলাদেশের বাজারে মেটবুক ১৩ এবং ডি ১৫ এর দাম যথাক্রমে এর দাম ৯৯,৯৯৯ এবং ৬৩,৯৯৯ টাকায়। হুয়াওয়ে মেটবুক ১৩ এবং হুয়াওয়ে মেটবুক ডি ১৫ মডেলের প্রিমিয়াম ল্যাপটপ দু’টি উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেমে চলবে। হুয়াওয়ে মেটবুক ১৩ ল্যাপটপটিতে মাল্টিটাচ স্ক্রিনসহ ১৩ ইঞ্চির ফুলভিউ ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে। এতে ২কে রেজ্যুলেশনের ভিউ পাওয়া যাবে। ১৬ জিবি র‌্যামের এ ল্যাপটপটিতে ১০ম জেনারেশনের কোর আই ফাইভ সিপিইউ ব্যবহার করা হয়েছে। রয়েছে ৫১২ জিবির স্টোরেজ।  মেটবুক ১৩ ল্যাপটপটি ১৪.৯ মিলিমিটার পাতলা এবং ১.৩ কেজি ভারী। ব্যবহার করা হয়েছে কুইক চার্জিং প্রযুক্তি। মেটাল চেসিসের এ ল্যাপটপটির স্ক্রিন টু বডি অনুপাত রাখা হয়েছে ৮৮ শতাংশ। রয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর।

অপরদিকে ৮ জিবি ডিডিআর ফোর র‌্যামের মেটবুক ডি ১৫ ল্যাপটপটিতে ১ টেরাবাইট ও ২৫৬ জিবির স্টোরেজ সুবিধা রয়েছে। এতে ব্যবহার করা হয়েছে এএমডি রাইজেন ৫ ৩৫০০ ইউ মডেলের প্রসেসর।

হুয়াওয়ে মেটবুক ডি ১৫ ল্যাপটপটি ১৬.৯ মিলিমিটার পাতলা এবং ১.৫৩ কেজি ভারী। এতে রয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট পাওয়ার বাটন ও কুইক চার্জিং প্রযুক্তি। ১৫.৬ ইঞ্চির ফুলভিউ ডিসপ্লের ল্যাপটপটিতে রয়েছে ১৯২০ ও ১০৮০ রেজ্যুলেশন। এর স্ক্রিন টু বডি অনুপাত রাখা হয়েছে ৮৭ শতাংশ।

*

*