প্রপার্টির সেবায় বিপ্রপার্টি

bproperty

বনানীতে নিজেদের কার্যক্রমের পরিধি বাড়ালো প্রপার্টি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বিপ্রপার্টি। প্রতিষ্ঠানটি গতকাল বনানীতে নিজেদের আউটলেটের উদ্বোধন করেছে। গণমাধ্যমের সামনে নতুন এ আউটলেটের উদ্বোধন করেন বিপ্রপার্টি’র প্রধান নির্বাহী মার্ক নসওয়ার্দি।

দু’বছর আগে বাংলাদেশে যাত্রা শুরু করে বিপ্রপার্টি। বর্তমানে, ২শ’র বেশি কর্মী নিয়ে প্রতিষ্ঠানটি রিয়েল এস্টেটের প্রতিবন্ধকতা দূরীকরণ ও সম্পত্তি সংক্রান্ত সেবা প্রদান করে আসছে। প্রতিষ্ঠানটি দেশের রিয়েল এস্টেট প্রেক্ষাপটে পেশাদারিত্বের সাথে কার্যকরী উপায়ে সম্পত্তির ক্রেতা ও বিক্রেতাকে সম্পত্তি বিষয়ক ওয়ান স্টপ সেবা প্রদান করছে।

প্রতিষ্ঠানটি বর্তমানে রাজধানী ঢাকা ও বন্দর নগরী চট্টগ্রামে সেবা প্রদান করছে। আগামী ১২ মাসে দেশের আরও অনেক শহরে বিপ্রপার্টি নিজেদের সেবাদান কার্যক্রমের বিস্তৃতি ঘটাবে। দেশজুড়ে সবাই যেনো সম্পত্তি বিষয়ক এ সেবা পেতে পারে এজন্য প্রতিষ্ঠানটি মফস্বল শহরেও কাজ করবে।

বিপ্রপার্টি’র ওয়েবপোর্টালে ২৫ হাজারেরও বেশি প্রপার্টি (যার মধ্যে ৫ হাজার বিক্রির জন্য) রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে নতুন ও রেডি অ্যাপার্টমেন্ট। ক্রেতারা তাদের স্বপ্নের ঘর কেমন করে চান সে অনুযায়ী অ্যাপার্টমেন্ট নির্বাচনের অপশন রেখেছে। সুরক্ষিত উপায়ে গ্রাহকদের সাধ্যের মধ্যে সর্বোত্তম সম্পত্তি নির্বাচনে বিপ্রপার্টি’র ওয়েবসাইটে থাকা সকল সম্পত্তির সকল তথ্য ও ছবি প্রতিষ্ঠানটি নিজ উদ্যোগে যাচাই করে ওয়েবসাইটে তুলেছে। পাশাপাশি বিশেষজ্ঞ দ্বারা ক্রেতাদের সম্পত্তি সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেয়া হয়ে থাকে ওয়েবসাইটটিতে।

সেবা প্রদানের লক্ষ্যে আজ শতকরা ১৯ ভাগ রেডি অ্যাপার্টমেন্ট (বিক্রির জন্য) এবং ৫০০-এর বেশি অ্যাপার্টমেন্ট নির্মাণাধীন অবস্থায় বিপ্রপার্টি বনানীতে নিজেদের কার্যালয় চালু করেছে। এধরনের অ্যাপার্টমেন্টগুলো ক্রেতাদের জন্য খুঁজে বের করা দূরহ ব্যাপার যা বিপ্রপার্টি সহজ সমাধানের মাধ্যমে ক্রেতাদের নিকট পৌঁছে দিতে পারবে।

সম্পত্তির সঠিক দরদাম নির্ধারণে (কেনা ও বেচা উভয় ক্ষেত্রেই) এবং সম্পত্তি সম্পর্কে সঠিক তথ্য পাওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞ সহায়তা প্রদানে, বিপ্রপার্টি ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়কেই সুযোগ করে দিবে। এক্ষেত্রে, সঠিক এলাকা নির্বাচন থেকে শুরু করে সম্পত্তির বিক্রিতে দামের মধ্যস্ততায়ও সহায়তা করবে প্রতিষ্ঠানটি।

সম্পত্তির ক্রয় ও বিক্রয়ে বিপ্রপার্টি, ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়ের সাথেই অত্যন্ত ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করছে। পাশাপাশি, প্রতিষ্ঠানটি সম্পত্তি সংক্রান্ত সকল বিষয় সঠিক যাচাই-বাচাইয়ে সঠিক তথ্য আদান-প্রদানে সম্ভাব্য ক্রেতাদের নিয়েও কাজ করছে। সঠিক সম্পত্তি খুঁজে পাওয়া এবং ক্রয় ও বিক্রয়ে দু’পক্ষেরই (ক্রেতা-বিক্রেতা) সময় ও ঝামেলা বাঁচিয়ে সাক্ষাৎকারের সময় ও স্থানও নির্ধারণ করে দেয় প্রতিষ্ঠানটি।

এসব সেবার বাইরেও বিপ্রপার্টি আইনি নথি প্রস্তুতে এবং সুনিশ্চিত আর্থিক লেনদেনে ক্রেতা ও বিক্রেতা দু’পক্ষকেই সহায়তা প্রদান করে। চুক্তি থেকে শুরু করে আইনি নথির প্রস্তুতি এবং সুরক্ষিত লেনদেনে সহায়তা দেয় প্রতিষ্ঠানটি। প্রয়োজনে প্রতিষ্ঠানটি গ্রাহকদের আইনসম্মত উপায়ে নথি লিখতেও সহায়তা প্রদান করে। গ্রাহকদের আর্থিক বিষয়েও সহায়তা প্রদান করে বিপ্রপার্টি। এক্ষেত্রে, প্রতিষ্ঠানটি ক্রেতাদের, এর আর্থিক সেবাপ্রদানকারী অংশীদারদের সাথে যোগাযোগ করিয়ে দিবে যাতে প্রয়োজনে সে (ক্রেতা) নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আর্থিক সহায়তা পেতে পারে।

নিজেদের সেবা কার্যমক্রমকে আরও বেশি মানুষের কাছে ছড়িয়ে দিতে অতিশীঘ্রই বিপ্রপার্টি নিজেদের মোবাইল অ্যাপেরও উদ্বোধন করবে।

বিপ্রপার্টি’র প্রধান নির্বাহী মার্ক নসওয়ার্দি বলেন, “বিপ্রপার্টি যেই ওয়ান স্টপ সমাধানটি দিচ্ছে তা নিশ্চিত করে যেন বাংলাদেশের মানুষ আস্থার সাথে রিয়েল এস্টেট বাজারে ক্রয় বা বিক্রয় এবং ভাড়া দেওয়া বা ভাড়া নেওয়া শুরু করতে পারে। বিপ্রপার্টি’র অনলাইন পোর্টাল এবং স্থানীয় অফিসগুলির মাধ্যমে রিয়েল এস্টেট লেনদেন আরো সহজতর হয়েছে।”

বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন: www.bproperty.com

*

*