চালু হলো ফিউচার অব ওয়ার্ক ল্যাব

future of work lab

ব্যক্তি, ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান এবং সরকারকে ভবিষ্যতের কর্মক্ষেত্র সুনির্দিষ্ঠ করার সহযোগিতার লক্ষ্যে ও সাউথ সাউথ কোঅপারেশনের সুবিধার্থে ২ জুলাই ২০২০ থেকে একটি অনলাইন প্লাটফর্মে ‘ফিউচার অব ওয়ার্ক ল্যাব’ চালু করা হয়েছে। উক্ত ল্যাবের উদ্বোধন করেন জাতিসংঘের অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি জেনারেল এবং ইউএনডিপির এশিয়া প্যাসিফিক রিজিওনাল ব্যুরোর পরিচালক ও অ্যাসিস্ট্যান্ট অ্যাডমিনিস্ট্রেটর মিজ. কান্নি উইনিরাজা। ইউএনডিপি ব্যাংকক রিজিওনাল হাব এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এবং মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের বাস্তবায়নাধীন ও ইউএনডিপি বাংলাদেশের সহযোগীতায় পরিচালিত এটুআই এর যৌথ আয়োজনে এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সারাবিশ্বের দক্ষিণের রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে সফল উদ্যোগ বিনিময়ের জন্য এবং দক্ষিণ দক্ষিণ সহযোগিতার সুবিধার্থে ‘ফিউচার অব ওয়ার্ক ল্যাব’ ভবিষ্যত কর্মের এজেন্ডা নিয়ে কাজ করবে। ভবিষ্যত কাজের ধরণ, কর্মক্ষম জনশক্তি এবং কর্মক্ষেত্র নিয়ে গবেষণার মাধ্যমে পরীক্ষা করে এবং সমাধান তৈরি করে প্রয়োজন অনুযায়ী বাস্তবায়ন করবে এই ল্যাব। এর মাধ্যমে কর্মক্ষম জনশক্তি এবং যুবসমাজকে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে ডিজিটাল প্রযুক্তিতে দক্ষ করে গড়ে তোলার পাশাপাশি ডাটা নির্ভর পলিসি তৈরির জন্য দক্ষতা বৃদ্ধি এবং পলিসি তৈরি-এ দু’টি বিষয়ের উপর মূলত জোর দেওয়া হবে।

উদ্বোধনের পর ফিউচার অব ওয়ার্ক ল্যাব-এর মিশন, মূল্যবোধ, ফ্রেমওয়ার্ক এবং পরিচালনা মডেল সম্পর্কে বিস্তারিত একটি উপস্থাপনা প্রদান করা হয়। ইউএনডিপি ব্যাংকক রিজিওনাল হাব এর এসডিজি ইন্টিগ্রশন লীড খ্রিস্টিনা ওয়েলিংটন এবং এটুআই পলিসি স্পেশালিস্ট ও ফিউচার অব ওয়ার্ক লীড আসাদুজ্জামান ফিউচার অব ওয়ার্ক ল্যাব নিয়ে এই উপস্থাপনা প্রদান করেন। এটুআই এর পলিসি অ্যাডভাইজর আনীর চৌধুরী এর সঞ্চালনায় প্যানেল আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, ইউএনডিপি বাংলাদেশের আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখার্জী।

মিজ. কান্নি উইনিরাজা বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে, কাজের প্রকৃতি, পরিধি এবং কর্মক্ষেত্রের ধরণ অনেক পরিবর্তন হয়েছে এবং জীবিকা নির্বাহের জন্য ভবিষ্যতের বিভিন্ন কাজকে দ্রুত চিহ্নিত করা প্রয়োজন। পরিবেশের সাথে ভারসাম্যপূর্ণ এবং টেকসই কাজগুলোকে সামনে এনে নতুন জব সেক্টর তৈরি করতে হবে পাশাপাশি সম্মিলিত ইন্টিলিজেনশ টুল ব্যবহারের মাধ্যমে শিখন, পরীক্ষা ও নিরীক্ষণের কৌশল ব্যবহার করতে হবে এবং লিঙ্গ বৈষম্য কমিয়ে আনতে হবে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জনাব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেছেন, কোভিড-১৯ আমাদের উন্নয়নের গতিতে প্রভাব ফেললেও টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে দেশ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলেছে। তিনি বলেন, “আমরা আমাদের ভালো উদ্যোগগুলো সহযোগী রাষ্ট্রের সাথে বিনিময় করতে সদা প্রস্তুত এবং সকল সহযোগীতা একে অপরের সাথে বিনিময় করার ক্ষেত্রে উৎসাহের সহিত অব্যাহত রাখবো।”

ইউএনডিপি বাংলাদেশের আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখার্জি প্রতিশ্রুতি দেন যে, ফিউচার অব ওয়ার্ক ল্যাবের কার্যক্রমকে এগিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে ইউএনডিপি কার্যকর ভূমিকা রাখবে। তিনি বলেন, “আমরা এমন একটি ইকোসিস্টেম তৈরি করতে চাই, যেখানে ছোট-বড় সকল অংশীদারগণ দক্ষ জনশক্তি বৃদ্ধিতে সমান সুযোগ পাবেন। প্রান্তিক নারী ও যুবসমাজের জন্য সুরক্ষামূলক করে বাংলাদেশের ভবিষ্যত কর্মক্ষেত্র রূপান্তর প্রক্রিয়ায় আমরা সহযোগিতা করতে চাই। আমরা ভবিষ্যত কর্মক্ষেত্র তৈরিতে সরকারি-বেসরকারি খাতে নিরিড়ভাবে সহযোগিতা করতে উৎসাহিত করব।”

মুক্ত আলোচনায় অন্যান্যদের মধ্যে অংশগ্রহণ করেন জাতিসংঘের সাউথ সাউথ অপারেশন অফিসের এশিয়া প্যাসিফিক রিজিওনাল কোঅর্ডিনেটর ডেনিস নকালা, ইউএনডিপি ভুটানের আবাসিক প্রতিনিধি আজুসা কুবোটা, ইউএনডিপি মালদ্বীপের আবাসিক প্রতিনিধি আকিকো ফুজি এবং দেশীয় ও বিদেশী গণমাধ্যমকর্মীগণ উপস্থিত ছিলেন।

*

*