অনলাইন নির্ভর প্রাইভেট কার ইন্স্যুরেন্স পলিসি “ নিরাপদ”

nirapad

ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি “নিটল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড চালু করেছে তাদের নতুন ইন্স্যুরেন্স পলিসি “নিরাপদ”, দেশের সর্বপ্রথম সর্বাঙ্গীণ অনলাইন নির্ভর প্রাইভেট কার ইন্স্যুরেন্স পলিসি। এ উপলক্ষে ঢাকা ক্লাবের স্যামসন এইচ চৌধুরী হলে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নিটল ইন্স্যুরেন্সের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশন (বিআইএ)- এর ভাইস-প্রেসিডেন্ট জনাব এ.কে.এম. মনিরুল হক। নিটল-নিলয় গ্রুপ-এর চেয়ারম্যান ও এফবিসিসিআই-এর সাবেক প্রেসিডেন্ট আব্দুল মাতলুব আহমাদ এবং বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশন (বিআইএ)-এর প্রেসিডেন্ট  শেখ কবির হোসেন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। আর এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইন্স্যুরেন্স ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড রেগুলেটরি অথরিটি (আইডিআরএ)-এর চেয়ারম্যান  শফিকুর রহমান পাটোয়ারী।

“নিরাপদ” হবে দেশের একমাত্র পরিপূর্ণ প্রাইভেট কার ইন্স্যুরেন্স পলিসি, কারণ, এটি গাড়ির নিজস্ব ক্ষতি, তৃতীয় পক্ষের শারীরিক ক্ষয়ক্ষতি/মৃত্যু ও সম্পদের ক্ষতি, ব্যক্তিগত দুর্ঘটনার দায়বদ্ধতাসহ গাড়ির ট্র‍্যাকার-ও কভার করবে। এছাড়াও এই পলিসি প্রাকৃতিক দুর্যোগে কভারেজ ও অন্যান্য বিবিধ বিষয়েরও সহায়তা প্রদান করবে। আর এর সবচাইতে ভালো দিকটি হলো, গ্রাহকরা এই ইন্স্যুরেন্সের প্রিমিয়াম, ইএমআই -এর মাধ্যমে প্রদান করতে পারবেন।

অনুষ্ঠানে নিটল ইন্স্যুরেন্সের চেয়ারম্যান  এ.কে.এম. মনিরুল হক বলেন, “আমাদের গ্রাহকদের জন্য আজ এই পলিসি শুরু করতে পেরে আমরা খুবই আনন্দিত। আমরা বিশ্বাস করি যে, এটা দেশের প্রাইভেট কার ইন্স্যুরেন্স এর ক্ষেত্রে একটি বিপ্লব নিয়ে আসবে”।

বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশন (বিআইএ)-এর সভাপতি শেখ কবির হোসেন বলেন, “নিটল ইন্স্যুরেন্স নতুন নতুন কার্যকরী বীমা নীতি উন্নয়নে অগ্রণী হয়ে উঠছে। “নিরাপদ”-এর মতো নীতিগুলো সামগ্রিক বীমা শিল্পের মান বাড়াতে সাহায্য করবে বলে আমরা আশাবাদী”।

নিটল-নিলয় গ্রুপের চেয়ারম্যান জনাব আব্দুল মাতলুব আহমাদ তার বক্তব্যে বলেন, “নিটল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিঃ তার গ্রাহকদের কাছে নতুন মাত্রার ইন্স্যুরেন্স পলিসি এনে দেয়ার জন্য বিগত দুই দশক ধরে অবিরত কাজ করে চলেছে। সেই প্রক্রিয়ারই সফল আত্মপ্রকাশ হল “নিরাপদ”।

ইন্স্যুরেন্স ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড রেগুলেটরি অথরিটির (আইডিআরএ)-এর চেয়ারম্যান এবং এই অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জনাব শফিকুর রহমান পাটোয়ারী বলেন, “এটি ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার দিকে একটি বিশাল অগ্রগামী পদক্ষেপ। এই অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হতে পেরে আর দেশের মানুষের জন্য এরকম একটি রোমাঞ্চকর ও উদ্ভাবনী পলিসি’র মোড়ক উন্মোচনের সুযোগ দিয়ে আমাকে সন্মানিত করায় আমি আনন্দিত”।

*

*